ব্রেকিং নিউজ

বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর


৫ জুন, ২০১৯ ১২:২৫ : পূর্বাহ্ণ

বিএনএ ডেস্ক: বুধবার(৫ জুন) সারাদেশে পালিত হবে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর।প্রতিটি প্রাণে তাই খুশির অনুরণন। আবাল বৃদ্ধ বণিতা-যে যার মত করে আনন্দধারায় সামিল হতে প্রস্তুত।পবিত্র রমজান মাসে রোজা পালনের পুরস্কার হিসেবে ঈদের আনন্দ প্রদান করেছেন মহান আল্লাহ ।

এক মাস সিয়াম সাধনার পর এদিন সকালে দেশের বিভিন্ন মসজিদ ও ঈদগাহে  ৬ তকবিরের সঙ্গে দুই রাকাত ঈদের নামাজ আদায়  করে আনন্দে মেতে উঠবেন মুসলিম সম্পদায়। নামাজে ধনী-গরীব সবাই এক কাতারে সামিল হবেন।নামাজ শেষে সবাই মহান আল্লাহর দরবারে দুহাত তুলে নিজের এবং দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি জন্য দোয়া চাইবেন। এই উৎসব শুধু  নির্মলই নয় ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণও বটে।

নামাজের আগে মুসলমানরা রমজান মাসের রোযার ভুলত্রুটির দূর করার জন্যে ঈদের দিন অভাবী বা দুঃস্থদের কাছে অর্থ প্রদান করে থাকেন, যেটিকে ফিতরা বলা হয়ে থাকে। এটি প্রদান করা মুসলমানদের জন্য ওয়াজিব। ঈদের নামাজের আগে ফিতরা আদায় করার বিধান রয়েছে। তবে ভুলক্রমে নামাজ পড়া হয়ে গেলেও ফিতরা আদায় করার নির্দেশ ইসলামে রয়েছে। ফিতরার ন্যূনতম পরিমাণ ইসলামী বিধান অণুযায়ী নির্দিষ্ট। সাধারণত ফিতরা নির্দিষ্ট পরিমাণ আটা বা অন্য শস্যের মূল্যের ভিত্তিতে হিসাব করা হয়।ধনী শ্রেণীর মানুষের সঙ্গে গরীবরাও যাতে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পারেন, এ জন্য  ফিতর দেয়া ওয়াজিব করা হয়েছে।

ঈদের আভিধানিক অর্থ হলো ফিরে আসা; অর্থাৎ রমজান মাসের বিশেষ নিয়ম-কানুন পালন থেকে ‘স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরে আসা’। মূলত এ উৎসবের তাৎপর্য হলো আত্মশুদ্ধি ও আত্মোৎসর্গের কঠোর ত্যাগ ও সাধনার প্রেক্ষাপটে আনন্দঘন সম্মিলন। ঈদুল ফিতর উৎসব পালন করা শুরু হয় ১৩৮০ সৌর বছর আগে, প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:)এর মদিনাতে হিজরতের অব্যবহিত পরেই। তখন থেকেই মুসলমানরা এ ঈদ উদযাপন করে আসছে।

ঈদের অন্যতম সামাজিক গুরুত্ব হলো, উন্মুক্ত ময়দানে ধনী-দরিদ্র, উঁচু-নিচু এবং সাদা-কালোর সব ভেদাভেদ ভুলে এক কাতারে শামিল হওয়া। এতে পাড়া-পতিবেশ থেকে শুরু করে সব পরিচিত-অপরিচিতের সঙ্গে একত্র হওয়ার সুযোগ ঘটে। নামাজ শেষে কোলাকুলির মাধ্যমে  সব ভেদাভেদ ও মনোমালিন্য ভুলতে চেষ্টা করে সবাই। ঈদের দিনে সবাই সাধ্যমতো নতুন পোশাক পরিধান করেন। এর মাধ্যমে পুরনো বিবাদ, দুঃখ-কষ্ট থেকে নতুন জীবনবোধ ও সম্পর্ক স্থাপনের প্রতীকী প্রকাশ ঘটে ।

আর করিম চৌধুরী/এস জি নবী

ট্যাগ :

আরো সংবাদ