ব্রেকিং নিউজ


বিষয় :

মুরাদপুর ফুটওভার ব্রিজ : একটি সফল উদ্যোগ


১২ জুন, ২০১৯ ১:০১ : অপরাহ্ণ

বিএনএ, চট্টগ্রাম ।। মুরাদপুর ফুটওভার ব্রিজটি বেশ বড়োসড়ো, চওড়া। বেশ জায়গা নিয়ে পরিকল্পনা নিয়ে তৈরি বলে মনে হলো। উঠতে নামতে বেগ পেতে হয় না। শ’য়ে শ’য়ে মানুষ উঠছে নামছে বিরক্ত হচ্ছেনা মোটেই।   বরং নিরাপদে আসা যাওয়া করছে। সড়ক পারাপার হচ্ছে।এটি প্রশংসনীয় একটি উদ্যোগ বৈকি।

মাঝখানে ডিভাইডার বন্ধ করে না দিলে পথচারীরা স্বেচ্ছায় উঠতে চাইবে না। এটাই স্বাভাবিক। পথচারীদের ওঠতে বাধ্য করা হচ্ছে। অথবা তারা নিজ প্রয়োজনে ওঠতে বাধ্য হচ্ছেন।সে যাই হোক একবার অভ্যাস হয়ে  গেলে সবকিছু আপন গতিতে চলতে থাকবে। আগেও ফুটওভার ব্রিজ দেখেছি। কিন্তু এতো লোকজনকে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করতে দেখিনি। কারণ ফুটওভার ব্রিজের নিচের সড়ক খোলা রেখে আপনি কিভাবে আশা করতে পারেন এ ফুটওভার ব্রিজ মানুষ ব্যবহার করবে।

উপরন্তু ফুটওভার ব্রিজটি যেন হয় নিরাপদ খোলামেলা ও ব্যবহার উপযোগী। নিউমার্কেটের সামনে একটি ফুটওভার ব্রিজ ছিল। সেটি পথচারীরা ব্যবহার করতো না। কারণ ফুটওভার ব্রিজগুলো    ছিল সংকীর্ণ, ব্যবহার অনুপযোগী, ভাসমান মানুষের ঠিকানা, রাত নামলে অসামাজিক কাজ ও মাদক বিকিকিনির আখড়া। ফলে নিরাপত্তাহীনতার আশংকায় পথচারীরা ভয়েই ওঠতো না ফুটওভার ব্রিজে।

এ সবের মূলকারণ  নিচের সড়কটি ছিল উন্মুক্ত। ফলে ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয় সুন্দর একটি উদ্যোগ। মুরাদপুর ফুটওভার  অন্য সবার জন্য  আদর্শ হতে পারে। একটি জিনিস দৃষ্টিকটূ ছিল,ফুটওভার ব্রিজের মুখ জুড়ে কিংবা উপরে জায়গা দখল করে ভিক্ষুকদের আধিপত্য বাড়ছে। এটি দূর করা দরকার।

সম্পাদনায় : আবির হাসান।

ট্যাগ :

আরো সংবাদ