কাগতিয়ার পীর সন্ত্রাসী, ভন্ড- আল্লামা শফি


২৬ জুন, ২০১৯ ৬:৪৭ : অপরাহ্ণ

রাউজান প্রতিনিধি: হেফাজত ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফি বলেছেন ‘কাগতিয়ার পীর মনিরুল্লাহ সন্ত্রাসী ভন্ড। জনগণের ওপর বেশি জুলুম করছে, মানুষকে মারধর করছে, হাত পা ভেঙ্গে দিচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৫-জুন) সকাল ১০ টায় রাউজানের গহিরা ইউনিয়নের দলই নগর মদিনাতুল উলুম মাদ্রাসা ও হেফজখানা ভবনের পরিদর্শন শেষে মোনাজাতকালে একথা বলেন তিনি।

আল্লামা শাহ আহমদ শফি আরও বলেন, কাগতিয়ার পীর  মনিরুউল্লাহ ও তার অনুসারি সন্ত্রাসীদের জোর-জোর-জুলুমে পুরো রাউজানের মানুষ অতিষ্ট। কেউ তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করলে তার ওপর চলে নির্যাতন। তার অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে সর্বস্তরের জনগণ এখন মাঠে নেমেছে। এলাকার লোকজনের প্রতিরোধের মূখে বিদেশে পালিয়ে গেছে মনিরুল্লাহ। কিন্তু থেমে নেই তার অনুসারিদের তান্ডব।কথিত পীর মুরিউল্লাহ অনুসারিরা যাতে জনগণের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন না করে সেজন্য আল্লাহ কাছে বিশেষ মোনাজাত করেন তিনি।

গহিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে  আরও বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার নির্বাহী পরিচালক মুফতি হোসাইন আহমদ, মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মওলানা আইয়ুব, মওলানা নাজিম উদ্দিন, মওলানা আজিজ ও মওলানা জাকরিয়া।

সে এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবর উদ্দিন, ইউনিয়ন যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. ইউনুছ, মো. সিরাজ, আব্দুল হালিম, জামাল উদ্দিন, মো. আনোয়ারসহ আরও অনেকে।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ১৮ এপ্রিল রাউজান উপজেলা সদরের মুন্সির ঘাটায় উত্তর সর্তা গ্রামের ছাত্রসেনা কর্মী নঈম উদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যা করে মুনিরীয়া যুব তবলীগের সমর্থকরা।

এছাড়া নিজেবে কাগতিয়া দরবারের কথিত পীর মওলানা মুনির উল্লাহর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগে রয়েছে। এ ব্যাপারে হাইকোর্টে রিটও দায়ের করা হয়। রিটটি দায়ের করেছিলেন রাউজানের প্রখ্যাত পীর মওলানা আবু বক্কর সিদ্দিকী (রহ.)। হাইকোর্টের রায় পক্ষে গেলেও এখন পর্যন্ত জমির দখলে যেতে পারেনি আবু বক্কর সিদ্দিকীর পরিবার।

মওলানা আবু বক্কর সিদ্দিকীর (রহ.) ছেলে মওলানা হাসান অভিযোগ করেন, ‌তাদের পারিবারিক সম্পত্তি জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছেন কাগতিয়া দরবারের কথিত পীর মুনির উল্লাহ। তার বাবা রুপচান্দ মসজিদ কমিটির সভাপতি হিসেবে উচ্চ আদালতে রিট করেন। আদালত তাদের পক্ষে রায় দিলেও মুনির উল্লাহ’র কর্মী-সমর্থকদের ভয়ে তারা জমির দখল নিতে পারেননি।

সম্প্রতি মওলানা মুনির উল্লাহসহ সংগঠনের নয়জন নেতা-কর্মীর নাম উল্লেখ ও ১০ থেকে ১২ জন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে রাউজান থানায় মামলা দায়ের করেছেন মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির কেন্দ্রীয় সহ এশায়াত সম্পাদক ও বিনাজুরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক সৈয়দ আবদুল্লাহ আল রশিদী।

 

 

আরো সংবাদ