সাংবাদিক হীরা’র ওপর সন্ত্রাসী হামলা:গাড়ি ভাংচুর।। সন্ত্রাসী আটক


৬ জুলাই, ২০১৯ ৭:৫৫ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি রোডের বালুছড়া এলাকায় দুজন সাংবাদিকের ওপর রেঞ্জারের চালক ও সহকারীরা হামলা চালিয়েছে।বালুচরা পিএইচপি স্পিনিং মিলের সামনের এ ঘটনায় সাংবাদিকদের বহনকারী কারওটিও ভাংচুর করা হয়।এ ঘটনায় বায়জিদ বোস্তামী থানা পুলিশ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আনোয়ার হোসেন নামে এক সন্ত্রাসীকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার(৬জুলাই) সকাল বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সি(বিএনএ)এর হেড অব নিউজ সাংবাদিক ইয়াসীন হীরা ও ফটো জার্নালিষ্ট মাসুদ পারভেজ টুটুল বিআরটিএ কার্যালয়ে গাড়ির ফিটনেস সংক্রান্ত কাজে যাচ্ছিলেন।

এ সময় হাটহাজারী থেকে মুরাদপুরগামী দুটি যাত্রীবাহী রেঞ্জার প্রতিযোগিতা দিয়ে শহরের দিকে আসছিল।সাংবাদিকদের বহনকারী কারটি দুটি গাড়ির মাঝখানে পড়ে যায়।একটি রেঞ্জার তাদের গাড়িকে সজোড়ে ধাক্কা দিয়ে বিধ্বস্ত করে দেয়।সাংবাদিকদ্বয় ঘটনার প্রতিবাদ করলে রেঞ্জারের স্থানীয় চালক সন্ত্রাসীদের নিয়ে সাংবাদিকদের ওপর হামলার চেষ্টা করে এবং গাড়ি ভাংচুর করে।

উল্লেখ্য, ২০০৩ সালে বালুছড়া এলাকায় দুটি রেঞ্জার চালকের অসুস্থ প্রতিযোগিতার শিকার হয়ে দ্রুতগামী হিউম্যানহলার রেঞ্জারের ধাক্কায় ১১ জন সম্ভাবনাময় ক্রিকেটারের মৃত্যু হয়।ওই ঘটনায় হতাহত সকলেই চট্টগ্রামের ফিরিঙ্গি বাজারের বাসিন্দা।পরে ২০১২ সালের ১০ মার্চ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের রায়ে রেঞ্জার চালকের তিন বছরের সাজা হয়।

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের বিবৃতি:
চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন –সিইউজের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সি(বিএনএ)এর হেড অব নিউজ সাংবাদিক ইয়াসীন হীরার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন –সিইউজের নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন,শনিবার সকালে নগরীর বালুচরা পিএইচপি স্পেনিং মিলের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসীরা তার ব্যবহার করা এলিয়ন ব্র্যান্ডের প্রাইভেট কারটিও ভাংচুর করেন। গাড়ি ভাংচুর করার ঘটনায় নগরীর বায়েজিদ থানা পুলিশ দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছেন। সাংবাদিক ইয়াসীন হীরা বাদী হয়ে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

হামলাকারীদের মধ্যে দুজন

এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ জানিয়ে সিইউজে সভাপতি নাজিমুদ্দীন শ্যামল ও সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস এক বিবৃতিতে বলেন, সড়কের উপর দুই গাড়ি চালকের অসুস্থ প্রতিযোগিতার শিকার হয়েছেন এবার সাংবাদিক। সাংবাদিক হীরার গাড়িকে ধাক্কা দিয়ে ধুমড়ে-মুচড়ে দেয়ার প্রতিবাদ করায় ওই গাড়ির চালক সোহেলসহ সন্ত্রাসীরা সাংবাদিকের উপর হামলা করেন। যা কোন ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। অবিলম্বে অন্য সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে আইনের আওয়তায় আনতে পুলিশের প্রতি অনুরোধ করেছেন সাংবাদিক নেতারা।

সাংবাদিক ইয়াসীন হীরা জানান, শনিবার সকালে তিনি তার প্রাইভেট কারটির কাগজপত্র নবায়ন করতে বিআরটিএ অফিসে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। যখন বালুচরা পিএইচপি স্পিনিং মিলের সামনে পৌছেন তখন বিপরীত দিক তথা হাটহাজারী থেকে দুটি রেঞ্জার সড়কের উপর কে, কার আগে যাবে, সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতা করতে করতে সামনের দিয়ে এগিয়ে আসতে থাকেন। আমার গাড়িটি সড়কের এক পাশে গিয়েও তাদের সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতা থেকে রক্ষা পায়নি। একটি রেইঞ্জার গাড়ি আমার প্রাইভেট কারকে ধাক্কা দেয়। আমি গাড়ি থেকে নেমে এর প্রতিবাদ করলে ওই রেইঞ্জারের ড্রাইভার সোহেল ও হেলপার আমার সঙ্গে তর্কে লিপ্ত হন। আমি পুলিশের হেল্পলাইন নম্বর ৯৯৯ ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চাই। এর মধ্যে ড্রাইভার সোহেল তার এলাকার সন্ত্রাসীদের খবর দিয়ে ঘটনাস্থলে নিয়ে আসেন। ড্রাইভার সোহেলের নেতৃত্বে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা আমার গাড়িটি ফের ভাংচুর করে আমাকে লাঞ্চিত করেন। গাড়িতে বসেই আমি মোবাইলে এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করতে থাকি। ঠিক তখনই পুলিশ এসে গাড়ি ভাংচুরের নেতৃত্ব দেওয়া ড্রাইভার সোহেল ও তার সহযোগী আনোয়ার হোসেনকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেন। এ ঘটনায় আমি বায়েজিদ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি।

বিএনএ/এসজিএন

আরো সংবাদ