মুসলিমরা জয় শ্রী রাম কেন বলবে ভারতে


১০ জুলাই, ২০১৯ ৫:৪৩ : অপরাহ্ণ

বিএনএ, বিশ্ব ডেস্ক : ভারতের অধিকাংশ অংশে হিন্দু  সম্প্রদায়  প্রভূ রামের নাম নেয় কোন পবিত্র উৎসবে, পূজা অর্চনায়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রামের নাম নিয়ে হিন্দু উগ্রপন্থীরা হত্যাযজ্ঞে নেমেছে।দিল্লী থেকে বিবিসির গীতা পান্ডে নিচের লিখাটা রচনা করেছেন।

গত মাসে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল সোস্যাল মিডিয়ায়।ঝাড়খন্দে ২৪ বছর বয়সী এক মুসলিম যুবককে একটি খুটিঁর সাথে বেঁধে বেধড়ক পেটাচ্ছে উগ্রবাদি হিন্দুরা। তার নাম তাবরেজ আনসারি। তাকে বলতে বাধ্য করছে  জয় শ্রী রাম বলতে। মুসলিম যুবকটি তার জীবন ভিক্ষা চাইছে জয় শ্রী রাম বলে। তার চোখে মুখে ছিল রক্তধারা। ইচ্ছেমতো পিটিয়ে তাকে   তুলে দেওয়া হয় পুলিশের হাতে।পুলিশ তাকে লকআপে ভরে রাখে। তার কোন নিকটআত্মীয়ের সাথে ও তাকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি।চারদিন পর যুবকটি বিনা চিকিৎসায়  মারা যায়। মুলত যুবকটি হিন্দু জাতীয়তাবাদী শক্তির উগ্র শিকার ছাড়া আর কিছু নয়। আনচারী একা নয়। জুন মাস ছিল মুসলমানদের রক্তরঞ্জিত একটি মাস। অনেক মুসলিম হিন্দুদের উগ্রতার শিকার হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ভারতে।

আসামের বারপেতা জেলায়  মুসলিম যুবকদের একটি গ্রুপকে জয় শ্রীরাম, ভারত মাতা কী জয়, পাকিস্তান মুরদাবাদ স্লোগান দিতে বাধ্য করে  উগ্রবাদী হিন্দুরা।

মুম্বাইয়ে ২৫ বছর বয়সী এক ট্যাক্সি চালককে নির্যাতন করে জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করে এক দল উগ্র হিন্দু।  ফয়জুল উসমান নামের এ যুবকটি জানায়, তার টাক্সিটি ঠিক করার সময় এ দলটি তার ওপর চড়াও হয়। ট্যাক্সির যাত্রী পুলিশকে ফোন করলে তারা চলে যায়।

কলকাতায় হাফিজ মোহাম্মদ হালদার (২৬)  নামের মাদ্রাসার এক মুসলিম শিক্ষক রেলে করে যাওয়ার সময় হিন্দু গ্রুপের নির্যাতনের শিকার হন। তারা হাফিজের টুপি দাড়িঁ ও কাপড় নিয়ে বিদ্রুপ করে। তাকে বলে  জয় শ্রী রাম স্লোগান দিতে। তিনি অস্বীকার করলে তাকে চলন্ত রেল থেকে নেমে যেতে বাধ্য করে।

ব্যাপারটি এখানেই থেমে থাকলেই হতো। দুর্ভাবনার বিষয় এটি পার্লামেন্টেও গড়িয়েছে। সংখ্যাঘুদের উপর এ ধরনের অত্যাচার নিকট অতীতে দেখা যায়নি। বিজেপি সরকারের আমলে  হিন্দু জাতীয়তাবাদকে অনেকটা উগ্রতার পর্যায়ে নিয়ে গেছে অতিমাত্রায় হিন্দুয়ানিরা। যা ভারতের মতো ধর্মনিরপেক্ষ একটি দেশের জন্য অশনী সংকেত।

সম্পাদনায় : আবির হাসান

ট্যাগ :

আরো সংবাদ