ব্রেকিং নিউজ

যে ফেসবুক স্ট্যাটাসে আবরার ফাহাদের মৃত্যু হলো


8 October, 2019 6:50 : PM

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে (২১) আবাসিক হলে পিটিয়ে হত্যার ঘটনার পর তার স্বজন ও বন্ধুদের মধ্যে  চলছে নানা আলোচনা। প্রায় সকলেরই অভিমত জীবনের শেষ দিনগুলোর ফেসবুক স্ট্যাটাসই তা জীবনের জন্য কাল হয়ে দাড়িয়েছিল।

এক নজর দেখা যাক , কি ছিল সে সব স্ট্যাটাসে।

 আবরার ফাহাদের সর্বশেষ ফেসবুক স্ট্যাটাসে(৫ অক্টোবর) যা ছিল :

ক. ১৯৪৭ এ দেশভাগের পর দেশের পশ্চিমাংশেে কোন সমুদ্রবন্দর ছিল না। তৎকালীন সরকার ৬ মাসের জন্য কলকাতা বন্দর ব্যবহারের জন্য ভারতের কাছে অনুরোধ করল। কিন্তু দাদারা নিজেদের রাস্তা নিজেদের মাপার পরামর্শ দিছিলো। বাধ্য হয়ে দুর্ভিক্ষ দমনে উদ্বোধনের আগেই মংলা বন্দর খুলে দেওয়া হয়েছিল। ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আজ ইন্ডিয়াকে সে মংলা বন্দর ব্যবহারের জন্য হাত পাততে হচ্ছে।

খ.   কাবেরি নদীর পানি ছাড়াছাড়ি নিয়ে কানাড়ি আর তামিলদের কামড়াকামড়ি কয়েকবছর আগে শিরোনাম হয়েছিল। যে দেশের এক রাজ্যই অন্যকে পানি দিতে চাই না সেখানে আমরা বিনিময় ছাড়া দিনে দেড়লাখ কিউবিক মিটার পানি দিব।

গ.    কয়েকবছর আগে নিজেদের সম্পদ রক্ষার দোহাই দিয়ে উত্তরভারত কয়লা-পাথর রপ্তানি বন্ধ করেছে অথচ আমরা তাদের গ্যাস দিব। যেখানে গ্যাসের অভাবে নিজেদের কারখানা বন্ধ করা লাগে সেখানে নিজের সম্পদ দিয়ে বন্ধুর বাতি জ্বালাব।

হয়তো এসুখের খোঁজেই কবি লিখেছেন-
“পরের কারণে স্বার্থ দিয়া বলি
এ জীবন মন সকলি দাও,
তার মত সুখ কোথাও কি আছে
আপনার কথা ভুলিয়া যাও।”

উপরের স্ট্যাটাসটিতে লাইক পড়েছিল ২লাখ ৩৪ হাজারটি এবং সেটি শেয়ারও হয় ৫২হাজারবার।

 

আবরার ফাহাদের ফেসবুক স্ট্যাটাসে(৩০ সেপ্টেম্বরের ২০১৯) যা ছিল : 

কে বলে হিন্দুস্তান আমাদের কোন প্রতিদান দেয়না। এইযে ৫০০ টন ইলিশ পাওয়ামাত্র ফারাক্কা খুলে দিছে। এখন আমরা মনের সুখে পানি খাবো আর বেশি বেশি ইলিশ পালবো। ইনশাল্লাহ আগামী বছর এক্কেবারে ১০০১ টন ইলিশ পাঠাবো।

আবরার হত্যা: আটক১০জন ৫দিনের রিমান্ডে

ছাত্রলীগের কর্মীরা এই স্ট্যাটাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষুব্ধ হয় বলে ধারণা তার সাধারণ সহপাঠি ও বন্ধুদের।৩০ সেপ্টেম্বরের স্ট্যাটাসে লাইক পড়েছিল ৬৮হাজার।শেয়ার হয়২৪০০বার।

 

রিমান্ডে অভিযুক্তরা: 

এদিকে মংগলবার(৮অক্টোবর) আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িত সন্দেহে  গ্রেফতারকৃত ছাত্রলীগের ১০ নেতার পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ছাত্রলীগের এই ১০ নেতা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুস্তাকিম ফুয়াদ, সহ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম বিটু, উপ-দফতর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ, উপ-সমাজকল্যাণ সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-আইন সম্পাদক অমিত সাহা, ক্রীড়া সম্পাদক সেফায়েতুল ইসলাম জিওন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক ইশতিয়াক মুন্না এবং সদস্য খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির।

মামলা: 

আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ঢাকার চকবাজার থানায় ৭ অক্টোবর বাদী হয়ে বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১৯ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

এর আগে রোববার (৬ অক্টোবর) রাতে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। সোমবার(৭ অক্টোবর) ভোরে শের-ই-বাংলা হলের প্রথম ও দ্বিতীয় তলার সিঁড়ির মধ্যবর্তী জায়গায় ফাহাদের নিথর দেহ পাওয়া যায়। তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল।

এরপর এদিন দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে তার মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ  ময়নাতদন্ত করেন। তিনি বলেন, ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

আবরার ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (ইইই) বিভাগের লেভেল-২ এর টার্ম ১ এর ছাত্র ছিলেন।  শের-ই-বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন তিনি। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরে। কুষ্টিয়া জেলা স্কুলে  স্কুলজীবন শেষ করে নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন আবরার ফাহাদ।

জানাজা : 

ঢাকায় নিজের শিক্ষা প্রতিষ্টান বুয়েট প্রাঙ্গণে সোমবার(৭ অক্টোবর) রাত দশটার দিকে শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর তার মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স কুষ্টিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ে।

মঙ্গলবার(৮ অক্টোবর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আবরারকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটি কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডের বাসার সামনে পৌঁছায়।সে সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন তার বাবা-মাসহ আত্মীয়স্বজন। সকালে পিটিআই রোডের বাসার সামনে ফাহাদের দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন  হয়। এতে স্বজন ও প্রতিবেশীসহ এলাকার নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশ নেন। সেখান থেকে মরদেহ নেয়া হয় গ্রামের বাড়ি কুমারখালী উপজেলার রায়ডাঙ্গা গ্রামে।

তৃতীয় জানাজা শেষে মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে তৃতীয় নামাজে জানাজা শেষে কুমারখালী উপজেলার রায়ডাঙ্গা পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

বিএনএনিউজ২৪.কম/এসজিএন

Print Friendly and PDF

আরো সংবাদ

আর্কাইভ
অক্টোবর ২০১৯
শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
« সেপ্টেম্বর   নভেম্বর »
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১