ব্রেকিং নিউজ


বিষয় :

গুজবে কোটালীপাড়ায় লবণ কেনার হিড়িক


১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ৯:১০ : অপরাহ্ণ

“লবনের কেজি দুই শত টাকা হবে”-এমন গুজবে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার ঘাঘর বাজারে লবণ কেনার হিড়িক পড়েছে। বাজারের প্রায় অর্ধ শতাধিক পাইকারি ও খুচরা দোকানে লাইন দিয়ে খুচরা বিক্রেতা ও ক্রেতাদের লবণ ক্রয় করতে দেখা গেছে। দাম নিয়ন্ত্রনে রাখতে বাজার মনিটরিং করছে উপজেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, সোমবার(১৮ নভেম্বর) রাত থেকে কোটালীপাড়া উপজেলায় লবণের কেজি ২’শ টাকা হবে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এ গুজবের কারণে মঙ্গলবার(১৯ নভেম্বর) সকাল থেকে ঘাঘর বাজারে লবণের ডিলার, পাইকারি বিক্রেতা ও খুচরা বিক্রেতাদের দোকানে লবণ কেনার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ে মানুষ।

বেলা ১২টার মধ্যে ডিলার ও অনেক পাইকারি ব্যবসায়ীর গোডাউন লবণ শূণ্য হয়ে যায়। খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন দাম নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য মাঠে নামে। হঠাৎ করে এভাবে লবণ কেনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অনেক ডিলার বা পাইকারি ব্যবসায়ীরা।

মধুমতি সল্টের কোটালীপাড়ার ডিলার জালাল শেখ বলেন, একটি গুজবের উপরে ভর করে জনগণ হঠাৎ করে এভাবে লবণ ক্রয় শুরু করেছে। এই মূহুর্তে দাম বাড়ার কোন সম্ভাবনাও নেই।

পাইকারি ব্যবসায়ী গনেশ সাহা বলেন, সকাল থেকেই তাদের দোকানে লবণ ক্রয়ের জন্য সাধারণ মানুষ ও খুচরা বিক্রেতারা ভিড় করে। বেলা ১২টার মধ্যে দোকানের সব লবন বিক্রি হয়ে যায়।

এ বিষয়ে কোটালীপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহসিন উদ্দিন বলেন, লবণের দাম বাড়ার গুজবের কারণে ঘাঘর বাজারে মঙ্গলবার সকাল থেকেই লবণ ক্রয়ের হিড়িক পড়ে যায়। খবর পেয়ে দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য বাজারে ছুটে আসে প্রশাসন। প্রত্যেক ডিলারকে বলে দেয়া হয়েছে আগে তারা ব্যবসায়ীদের কাছে যে পরিমান লবণ বিক্রি করতো এখন সেভাবেই বিক্রি করতে হবে। এছাড়া খুচরা বিক্রেতাদেরকে ১কেজি থেকে ২কেজির উপরে লবণ বিক্রি করতে নিষেধ করা হয়েছে।

কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, এ মূহুর্তে লবণের কোন সংকট নেই। তাই দাম বাড়ার কোন সম্ভবনাও নেই। যদি কোন ডিলার বা ব্যবসায়ী বাজার মূল্যোর চেয়ে বেশি দামে লবণ বিক্রি করে তা হলে তার বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিএনএনিউজ২৪.কম/আর করিম চৌধুরী,এস জি নবী

Print Friendly and PDF

আরো সংবাদ

আর্কাইভ
November 2019
F S S M T W T
« Oct   Dec »
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031