ব্রেকিং নিউজ

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ পর্ব  ঃ ১৪৭


৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৬:০০ : পূর্বাহ্ণ

মুক্তিযোদ্ধাগণ সামনে বাড়ছেন, হানাদার বাহিনী পিছু হটছে

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতের অন্ধকারে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী পূর্ব পাকিস্তানে বাঙালি নিধনে ঝাঁপিয়ে পড়ে। ঢাকায় অসংখ্য নিরীহ সাধারণ বাঙালি নাগরিক, ছাত্র, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, পুলিশকে হত্যা করে। ওই রাতেই গ্রেপ্তার করা হয় ১৯৭০ সালের সাধারণ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রাপ্ত দল আওয়ামী লীগ প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। পরিকল্পিত গণহত্যার মুখে সারাদেশে শুরু হয় প্রতিরোধ যুদ্ধ। ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট, ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলস (ইপিআর), ইস্ট পাকিস্তান পুলিশ এবং সর্বোপরি বাংলাদেশের স্বাধীনতাকামী সাধারণ মানুষ গড়ে তোলে মুক্তিবাহিনী। গেরিলা পদ্ধতিতে যুদ্ধ চালিয়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে ব্যতিব্যস্ত করে তোলে। ডিসেম্বরের শুরুর দিকে যখন পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর পতন অনিবার্য হয়ে ওঠে। মুক্তিবাহিনীর কাছে পরাজয়ের লজ্জা এড়াতে স্বাধীনতা যুদ্ধকে ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। ৩ ডিসেম্বর ভারতে বিমান হামলার মাধ্যমে যুদ্ধে লিপ্ত হয় পাক বাহিনী। মুক্তিবাহিনী ও ভারতীয় সামরিক বাহিনীর সম্মিলিত আক্রমণের মুখে পর্যদুস্ত ও হতোদ্যম পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী যুদ্ধ বিরতির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। কিন্তু ১৬ ডিসেম্বর কোন ঘোষণা ছাড়াই ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে পাকিস্তান ৯৩,০০০ হাজার সৈন্যসহ যুদ্ধবিরতির পরিবর্তে আত্মসমর্পণের দলিলে সই করে। বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ হিসাবে পৃথিবীর মানচিত্রে আত্মপ্রকাশ করে। স্বাধীনতার সেই প্রেক্ষাপট বর্তমান প্রজন্মের কাছে অজানা। নতুন প্রজন্মের কাছে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতেই বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সি (বিএনএ) বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধ দলিলপত্র (১-১৫খন্ড) এর ভিত্তিতে ধারাবাহিক ভাবে প্রচার করছে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ’।

আজ প্রচারিত হলো  পর্ব : ১৪৭

শিরোনাম   ঃ     মুক্ত এলাকায় অবস্থিত দেশের সম্পদ সংরক্ষণ সম্পর্কে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতির নির্দেশ

সূত্র   ঃ   বাংলাদেশ সরকার রাষ্ট্রপতির কার্যালয়

তারিখ  ঃ  ২ ডিসেম্বর, ১৯৭১

গোপন

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়

বরাবর

কমান্ডার ইন চিফ

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

বিষয়ঃ   বাংলাদেশের স্বাধীন অঞ্চলগুলোর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির নিরাপদ রক্ষণাবেক্ষণ

আমাদের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ সামনে বাড়ছেন, হানাদার বাহিনী পিছু হটছে এবং এমতাবস্থায় সেক্টর কমান্ডার, সাব-সেক্টর কমান্ডার ও ক্রমানুসারে অন্যান্য অফিসারের প্রতি স্পষ্ট নির্দেশনার প্রয়োজন যেন শত্রুমুক্ত এলাকাসমূহের সকল স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তি ও শস্যক্ষেত্রের নিরাপত্তা প্রদান করা হয় এবং কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্র মাফিক বৈধ মালিকের কাছে তা ফিরিয়ে দেয়া হয়।

বাংলাদেশ সরকার এ বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে, এটি অবশ্যই জনপ্রশাসনের প্রথম ও প্রধান দায়িত্ব হবে এবং শীঘ্রই এ বিষয়ে তাদের নির্দেশনা দেয়া হবে। এর মধ্যবর্তী সময়ে মুক্ত অঞ্চলের সকল সম্পত্তি রক্ষার্থে সশস্ত্রবাহিনীকে জনপ্রশাসনকে সব ধরণের সাহায্য করার নির্দেশ দেয়া হচ্ছে।

২। আমাকে জননেতাগণ জানিয়েছেন সুন্দরি গাছের গুঁড়ি ও গোলপাতা সুন্দরবনের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ এবং এর সঙ্গে আমাদের জাতীয় স্বার্থ জড়িত। এদের ধ্বংস পরিহারে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এ বিষয়ে সেক্টর কমান্ডারদের প্রতি লিখিতভাবে নির্দেশনা দেবার জন্য সুপারিশ করছি।

(সৈয়দ নজরুল ইসলাম)

ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি

মেমো নং PS/SEC/VI 1/243 (1)

তারিখঃ ২ ডিসেম্বর

প্রতিলিপি প্রতিরক্ষা  বাহিনীর  দায়িত্বরত  মন্ত্রীর  প্রতিপ্রয়োজনীয়  তথ্য ও  ব্যবস্থা  গ্রহনের  জন্য  পাঠানো  হল

 

ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি

 

শিরোনাম  ঃ  বাংলাদেশ সরকারের অস্থায়ী মহাসচিব নিয়োগ সম্পর্কে মন্ত্রী পরিষদের সিদ্ধান্ত 

সূত্র  ঃ     বাংলাদেশ সরকার  কেবিনেট ডিভিশন

তারিখ  ঃ   ৭ ডিসেম্বর, ১৯৭১

গোপনীয়

৬ ডিসেম্বর ১৯৭১ তারিখে অনুষ্ঠিত মন্ত্রীসভার বৈঠকে

আলোচনা থেকে গৃহীত সিদ্ধান্তসমুহ  সিদ্ধান্ত নেয়া হল যে এখনকার জন্য সরকারের তরফ থেকে একজন অস্থায়ী সেক্রেটারি জেনারেল নিযুক্ত করা হবে এবং নিয়োগ হবে নিছকই অস্থায়ী। মন্ত্রীসভা জনাব রুহুল কুদ্দুসকে এই পদের জন্য নির্বাচিত করেছে এবং তাঁকে তাৎক্ষণিকভাবে নির্ধারিত পদে নিযুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি

মেমো নং- ……/ক্যাব.তারিখঃ ৭ ডিসেম্বর, ১৯৭১

প্রতিলিপিঃ

১। ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতির ব্যক্তিগত সচিব

২। প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব

৩। অর্থমন্ত্রির ব্যক্তিগত সচিব

৪। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব

৫। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব

৬। জনাব রুহুল কুদ্দুস

৭। সকল সচিবগণ

৮। সচিব, জিএ ডিপার্টমেন্ট, প্রয়োজনীয় দাপ্তরিক স্থান ও স্টাফ প্রদান করে অস্থায়ী সেক্রেটারি জেনারেলকে সহযোগিতা করার অনুরোধ সাপেক্ষে। সেক্রেটারি জেনারেলের কার্যালয় হবে প্রধানমন্ত্রীর অফিস বিল্ডিংএ।

(এইচ টি ইমাম)

মন্ত্রীপরিষদ সচিব

০৭.১২.১৯৭১

 

পরিকল্পনা : ইয়াসীন হীরা

গ্রন্থনা : সৈয়দ গোলাম নবী

সম্পাদনায় : আবির হাসান

 

Print Friendly and PDF

আরো সংবাদ

আর্কাইভ
December 2019
F S S M T W T
« Nov    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930