শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০

ব্রেকিং নিউজ

অভিনেতা অক্ষয় কুমার ভারতীয় নয় ?


৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৮:৫০ : অপরাহ্ণ

ভারতে জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন (এনআরসি) শুরু হয়েছে। এতে ভারতে অবস্থান করা অনেকেই আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন।বাদ পড়ছেন বিখ্যাত ব্যক্তিরাও।

ভারতীয় বিখ্যাত অভিনেতা অক্ষয় কুমার এর আসল নাম রাজিব হরি ওম ভাটিয়া। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন ৫২ বছর বয়সী এই অভিনেতা। তবে লোকসভা নির্বাচনের সময় তিনি ভোট দেননি। এরপর থেকেই নাগরিকত্ব নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন অক্ষয় কুমার। যদিও অক্ষয় জানিয়েছেন, তার স্ত্রী এবং বাচ্চারা সবাই ভারতীয়। তিনি তাদের সঙ্গেই থাকেন আর এই দেশে করও দেন। তবুও তাকে নাকি তাকে ভারতীয় পাসপোর্ট নিতে হচ্ছে।

অক্ষয় কুমার বলেন, ‘এত সমালোচনার পর ভারতীয় পাসপোর্টের আবেদন করার জন্য আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইতোমধ্যে আমি পাসপোর্টের আবেদন করেছি। এই বিষয়টি আমাকে খুবই দুঃখ দিয়েছিল যখন দেখি আমি ভারতীয় কিনা, সেই প্রমাণ আমাকে পাসপোর্ট দিয়ে দিতে হবে। সত্যিই খুবই দুঃখজনক এটা।’

অক্ষয় কুমারের কানাডার পাসপোর্ট রয়েছে। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন আমার ১৪টা ছবি ফ্লপ করেছিল। তখন আমি ভেবেছিলাম যে আমাকে অন্য কিছু কাজ করতে হবে। আমার খুব ঘনিষ্ঠ এক বন্ধু কানাডায় থাকে তখন সে আমাকে কানাডায় আসার জন্য প্রস্তাব দেয়। তারপরই আমি কানাডার পাসপোর্ট নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘পাসপোর্ট নেওয়ার পর আমার ১৫তম ছবি সাফল্য পায়। এরপর থেকে আর কখনোই পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। আমি এগোতে থাকি।

অক্ষয় কুমার  হলেন একজন ভারতীয় হিন্দি চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব। ২৯ বছরের অধিক অভিনয় জীবনে তিনি এক শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন এবং কয়েকটি পুরস্কার অর্জন করেছেন, তন্মধ্যে রয়েছে রুস্তম (২০১৬) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, এবং অজনবী (২০০১) ও গরম মসলা (২০০৫) চলচ্চিত্রের জন্য দুটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার।

তিনি প্রথম বলিউড অভিনেতা যার চলচ্চিত্রের সংগ্রহ ২০ বিলিয়ন রুপী ছাড়িয়ে যায় ২০১৩ সালে এবং ৩০ বিলিয়ন রুপী ছাড়িয়ে যায় ২০১৬ সালে। এর মাধ্যমে তিনি হিন্দি চলচ্চিত্রের অন্যতম অভিনেতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন। নব্বইয়ের দশকে তিনি মূলত মারপিটধর্মী চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। পরবর্তী কালে তিনি নাট্যধর্মী, প্রণয়ধর্মী ও হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

তিনি অভিনেত্রী টুইঙ্কল খান্নার স্বামী এবং অভিনেতা রাজেশ খান্না ও ডিম্পল কপাড়িয়ার জামাতা। ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পে তার অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৮ সালে উইন্ডসর বিশ্ববিদ্যালয় তাকে সম্মানসূচক ডক্টরেট প্রদান করে। ২০০৯ সালে ভারত সরকার তাকে পদ্মশ্রী সম্মাননায় ভূষিত করে। ২০১১ সালে চলচ্চিত্র শিল্পে তার অনন্য অবদানের জন্য তিনি এশিয়ান অ্যাওয়ার্ডস থেকে সম্মাননা লাভ করেন।

বিএনএনিউজ২৪.কম/এসজিএন

 

Print Friendly and PDF

আরো সংবাদ

আর্কাইভ
December 2019
F S S M T W T
« Nov   Dec »
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930